চলে গেলেন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের উদ্যোক্তা রফিকুল ইসলাম

সালাম খোকন

মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে অবশেষে হেরে গেলেন আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসের উদ্যক্তা রফিকুল ইসলাম। ২০ নভেম্বর ২০১৩ হাসপাতালে চিকিসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহে ওয়া ইল্লাহে রাজেউন) তিনি। ২০১২ সালের ২৩ মার্চ রফিকুল ইসলামকে কানাডার ভ্55যাংকুভার জেনারেল হাসপাতালে (ভিজিএইচ) ভর্তি করার পর তার শরীরে ক্যান্সার ধরা পড়ে। তখন চিকিৎসকরা জানিয়েছিলেন, তিনি সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে উঠছেন। কিন্তু বর্তমানে তার শরীরে নিয়ন্ত্রণহীনভাবে ছড়িয়ে পড়েছে ক্যান্সার। তাকে কেমোথেরাপির পাশাপাশি আয়ুবের্দিক চিকিৎসা দেয়া হচ্ছিল। এই অক্টোবরেই তার দেশে ফেরার কথা ছিল। কিন্তু সবাইকে কাদিয়ে নিরবে চলে গেলেন তিনি।

১৯৯৮ সালের ৯ জানুয়ারি রফিকুল ইসলাম জাতিসংঘের তৎকালীন জেনারেল সেক্রেটারি কফি আনানকে একটি চিঠি লেখেন। সেই চিঠিতে তিনি ১৯৫২ সালে ভাষা শহীদদের অবদানের কথা উল্লেখ করে কফি আনানকে প্রস্তাব করেন ২১শে ফেব্রুয়ারীকে ‘মাতৃভাষা দিবস’ হিসেবে যেন আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি দেয়া হয়। সে সময় এ চিঠিটি সেক্রেটারী জেনারেলের প্রধান তথ্য কর্মচারি হিসেবে কর্মরত হাসান ফেরদৌসের নজরে আসে। তিনি ১৯৯৮ সালের ২০ জানুয়ারী রফিককে অনুরোধ করেন তিনি যেন জাতিসংঘের অন্য কোনো সদস্য রাষ্ট্রের কারো কাছ থেকে একই ধরনের প্রস্তাব আনার ব্যবস্থা করেন। সেই উপদেশ অনুযায়ী রফিক তার সহযোদ্ধা আব্দুস সালামকে সাথে নিয়ে ‘এ গ্রুপ অব মাদার ল্যাংগুয়েজ অফ দ্যা ওর্য়াল্ড’ নামে একটি সংগঠন দাঁড় করান।
সেই সংগঠন আর ততকালীন বাংলাদেশ সরকারের যৌথ প্রচেষ্টার ফসল আজকের আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস।

বাংলা একাডেমির শোকবাণী

মহান ২১শে র্ফের“য়ারিকে আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস ঘোষণার অন্যতম রূপকার রফিকুল ইসলাম  ২০ নভেম্বর ২০১৩ কানাডার ভ্যাস্কুভার জেনারেল হাসপাতালে চিকিসাধীন অবস্থায় ইন্তেকাল করেন।
প্রবাসী বাঙালি জনাব রফিকুল ইসলাম  এবং আবদুস সালাম ১৯৯৮ সালে ‘মাদার ল্যাঙ্গুয়েজ লাভার্স অব দ্য ওয়ার্ল্ড’-সংগঠনের মাধ্যমে জাতিসংঘে মাতৃভাষার জন্য বাঙালির বীরত্বপূর্ণ আত্মত্যাগের স্বীকৃতিস্বরূপ একুশে ফের্রুয়ারিকে আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণার আবেদন জানান। তারই প্রেক্ষিতে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং বাংলাদেশ সরকারের প্রচেষ্টায় ১৯৯৯ সালের ১৭ই নভেম্বর ইউনেস্কো ২১শে ফেব্র“য়ারিকে আর্ন্তজাতিক মাতৃভাষা দিবস হিসেবে ঘোষণা করে।
বাংলা একাডেমি ভাষাপ্রেমী-দেশপ্রেমিক রফিকুল ইসলামের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করছে এবং তাঁর শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি আন্তরিক সমবেদনা জ্ঞাপন করছে।

শামসুজ্জামান খান
মহাপরিচালক

Print Friendly