অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪ : বাংলা একাডেমি থেকে পাঠানো যাবতীয় তথ্য (হুবহু)

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাহিত্য বাজার

 Picture-(30.01.2014)-copyঅমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪ : বাংলা একাডেমি থেকে পাঠানো যাবতীয় তথ্য (হুবহু)

মুর্শিদুদ্দিন আহম্মদ, উপপরিচালক, বাংলা একাডেমি

আগামী ১৯ মাঘ ১৪২০ / ১লা ফেব্র“য়ারি ২০১৪ শনিবার শুরু হতে যাচ্ছে বাংলা একাডেমি আয়োজিত অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪। গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল বিকেল ৩:০০টায় বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণে মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪ উদ্বোধন করবেন। উদ্বোধন শেষে প্রধানমন্ত্রী মেলা পরিদর্শনে যাবেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাস এনডিসি। স্বাগত ভাষণ দেবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির সভাপতি প্রফেসর এমেরিটাস আনিসুজ্জামান। অনষ্ঠান পরিচালনা করবেন অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪ উদ্যাপন কমিটির সদস্য-সচিব ও বাংলা একাডেমির পরিচালক শাহিদা খাতুন।

গ্রন্থমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০১৩ প্রদান করা হবে। এছাড়াও বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মূকাভিনয় শিল্পী পার্থপ্রতিম মজুমদারকে সম্মানসূচক ফেলোশিপ প্রদান করা হবে। অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমি প্রকাশিত বিবর্তনমূলক বাংলা অভিধান মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর হাতে তুলে দেবেন একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান।

এবারের গ্রন্থমেলা সদ্যপ্রয়াত ভাষাসংগ্রামী, লেখক-গবেষক, বাংলা একাডেমির ফেলো, বিচারপতি মুহাম্মদ হাবিবুর রহমানের স্মরণে উৎসর্গ করা হয়েছে।

পহেলা ফেব্র“য়ারি ২০১৪/১৯ মাঘ ১৪২০, শনিবার শুরু হতে যাচ্ছে মাসব্যাপী অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪। বিকেল ৩-০০টায় গ্রন্থমেলার উদ্বোধন করবেন গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। উদ্বোধন অনুষ্ঠান শেষে তিনি গ্রন্থমেলা পরিদর্শনে যাবেন। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। শুভেচ্ছা বক্তব্য প্রদান করবেন সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাস এনডিসি। স্বাগত ভাষণ দেবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান। উদ্বোধন অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির সভাপতি প্রফেসর এমেরিটাস আনিসুজ্জামান। এবারের গ্রন্থমেলা সদ্যপ্রয়াত ভাষাসংগ্রামী, লেখক-গবেষক, বাংলা একাডেমির ফেলো, বিচারপতি মুহাম্মদ হাবিবুর রহমানকে  উৎসর্গিত।

গ্রন্থমেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০১৩ প্রদান করা হবে। এছাড়াও বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন মূকাভিনয় শিল্পী পার্থপ্রতিম মজুমদারকে সম্মানসূচক ফেলোশিপ প্রদান করা হবে।

অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪

গ্রন্থমেলা অনুষ্ঠিত হবে বাংলা একাডেমি প্রাঙ্গণ এবং একাডেমি সম্মুখস্থ ঐতিহাসিক সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যানে। গ্রন্থমেলায় মোট ২৯৯টি প্রতিষ্ঠানকে ৫৩৪টি ইউনিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে মেলার সোহ্রাওয়ার্দী উদ্যানের অংশে ২৩২টি মূল প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে ৪৩২টি ইউনিট; বাংলা একাডেমির অভ্যন্তরীণ অংশে ২৪টি শিশু-কিশোর প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে ৩৩টি ইউনিট এবং সরকারি প্রতিষ্ঠান-মিডিয়া ও অন্যান্য ৪৩টি প্রতিষ্ঠানকে ৬৯টি ইউনিট বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এবার উন্মুক্তসহ ৫৫টি লিটল ম্যাগাজিনকে লিটল ম্যাগাজিন কর্ণারে জায়গা করে দেয়া হয়েছে। লিটল ম্যাগাজিন কর্নারটি লিটলম্যাগ আন্দোলনের বিশিষ্ট ব্যক্তিত্ব প্রয়াত কবি খোন্দকার আশরাফ হোসেনের নামে নামকরণ করা হয়েছে। প্রকাশনা সংস্থা এবং ব্যক্তি উদ্যোগে যাঁরা বই প্রকাশ করেছেন তাঁদের বই বিক্রি/প্রদর্শনের জন্য জাতীয় গ্রন্থকেন্দ্রের স্টলে রাখা যাবে। গ্রন্থমেলায় বাংলা একাডেমি প্রকাশিত বই ৩০% কমিশনে এবং মেলায় অংশগ্রহণকারী অন্যান্য প্রতিষ্ঠান ২৫% কমিশনে বিক্রি করবে।

অমর একুশে গ্রন্থমেলা সম্পূর্ণ প্রাঙ্গণকে ভাষাশহিদ চত্বর (সালাম, রফিক, জব্বার, বরকত ও শফিউর), রবীন্দ্র, নজরুল, আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ, ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্, সোমেন চন্দ, রোকেয়া, সুফিয়া কামাল, ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত চত্বর এবং একুশে ফেব্র“য়ারিকে আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে স্বীকৃতি লাভের অন্যতম প্রস্তাবক প্রয়াত রফিকুল ইসলাম চত্বরে বিন্যস্ত করা হয়েছে। এছাড়া নজরুল মঞ্চের সামনে শিশুকর্ণারে থাকবে শিশু-কিশোর বিষয়ক প্রকাশনা প্রতিষ্ঠান। প্রতিবারের মতো এবারেও নতুন বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানের ব্যবস্থা থাকবে। অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪-এর প্রচার কার্যক্রমের জন্য তথ্যকেন্দ্র থাকবে বর্ধমান ভবনের পশ্চিম বেদিতে। সাংবাদিকদের অবাধ তথ্য আদান-প্রদানের সুবিধার্থে গ্রন্থমেলায় মিডিয়া সেন্টার থাকবে তথ্যকেন্দ্রের উত্তর পার্শ্বে। বর্তমান সরকারের ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ’ ধারণার অংশ হিসেবে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এটুআই কর্তৃপ গ্রন্থমেলায় তাদের নিয়মিত কার্যক্রমের পাশাপাশি এবার গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন, তথ্যকেন্দ্রের সর্বশেষ খবরাখবর এবং মেলার মূল মঞ্চের সেমিনার প্রচারের ব্যবস্থা করবে।

মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠান সরাসরি সম্প্রচার করবে বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতার। এছাড়া মেলা প্রাঙ্গণ থেকে চ্যানেল আই, বাংলাভিশন, গাজী টিভি, সময় টেলিভিশন, এস এ টিভি, চ্যানেল ৭১ মেলার তথ্যাদি প্রতিদিন সরাসরি সম্প্রচার করবে। এ ছাড়া এফ এম রেডিওগুলোও মেলার তথ্য প্রচার করবে।  গ্রন্থমেলার খবরাখবর নিয়ে প্রতিদিন বেশ কয়েকটি বুলেটিন প্রকাশিত হবে। ওয়েবসাইটের মাধ্যমে বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম প্রতিদিন মেলার তথ্য প্রচার করবে।

গ্রন্থমেলার প্রবেশপথে আর্চওয়ে দিয়ে মেলায় প্রবেশের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মেলার সার্বিক নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করবে বাংলাদেশ পুলিশ, র‌্যাব, আনসার, গোয়েন্দা সংস্থাসহ একাডেমির নিরাপত্তাকর্মীবৃন্দ। পাশাপাশি নিশ্চিদ্র নিরাপত্তার জন্য মেলা প্রাঙ্গণে থাকবে কোজসার্কিট ক্যামেরা। গ্রন্থমেলা থাকবে সম্পূর্ণ পলিথিন ও ধূমপানমুক্ত।

২রা ফেব্র“য়ারি থেকে ২৮শে ফেব্র“য়ারি পর্যন্ত প্রতিদিন বিকেল ৪টায় গ্রন্থমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে সেমিনার। শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি-সমকালীন প্রসঙ্গ এবং বিস্মৃতপ্রায় বিশিষ্ট বাঙালি মনীষার জীবন ও কর্ম নিয়ে আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে। এ ছাড়া মাসব্যাপী প্রতিদিন সন্ধ্যায় থাকবে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪ উপলে বাংলা একাডেমি শিশু-কিশোর চিত্রাঙ্কন, সংগীত, সাধারণ জ্ঞান ও উপস্থিত বক্তৃতা প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে।

অমর একুশে গ্রন্থমেলায় অংশগ্রহণকারী প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের ২০১৩ সালে প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্য থেকে গুণগতমান বিচারে সেরা গ্রন্থের জন্য প্রকাশককে ‘চিত্তরঞ্জন সাহা স্মৃতি পুরস্কার’ এবং গ্রন্থমেলায় সর্বাধিক সংখ্যক মানসম্মত বই প্রকাশের জন্য শ্রেষ্ঠ তিনটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে ‘মুনীর চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার’ প্রদান করা হবে।

মাসব্যাপী গ্রন্থমেলায় এবার ৪ দিন শিশুপ্রহর ঘোষণা করা হবে।

এবারের গ্রন্থমেলায় বাংলা একাডেমি প্রকাশিত ৫০টির অধিক নতুন বই পাওয়া যাবে।

গ্রন্থমেলার সময়সূচি : গ্রন্থমেলা পহেলা ফেব্র“য়ারি থেকে ২৮শে ফেব্র“য়ারি পর্যন্ত ছুটির দিন ব্যতীত প্রতিদিন বিকেল ৩টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত খোলা থাকবে। ছুটির দিন বেলা ১১টা থেকে রাত ৯টা এবং ২১শে ফেব্র“য়ারি সকাল ৮টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত মেলা চলবে।

২০০২-২০১৪ সাল পর্যন্ত মেলায় অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান ও স্টল বিন্যাসের তুলনামূলক চিত্র

সাল        অংশগ্রহণকারী প্রতিষ্ঠান           ১ ইউনিট  ২ ইউনিট  ৩ ইউনিট  ৪ ইউনিট  মোট ইউনিট

২০১৪      ২৯৯       ১৩৩ * ১= ১৩৩    ১০৮ * ২= ২১৬     ৪৭ * ৩= ১৪১       ১১ * ৪ = ৪৪        ৫৩৪

২০১৩     ২৭৪        ১৩৫ * ১= ১৩৫     ৯২ * ২ = ১৮৪      ৪৭ * ৩ = ১৪১                  ৪৬০

২০১২      ৪২৫       ২৬৬ * ১ = ২৬৬  ১১৩ * ২ = ২২৬    ৪৬ * ৩ = ১৩৮                ৬৩০

২০১১      ৩৭৬      ২৩০ * ১ = ২৩০    ১১২ * ২ = ২২৪     ৩৪ * ৩ = ১০২                  ৫৫৬

২০১০      ৩৫৬      ২৩০ * ১ = ২৩০    ১০৩ * ২ = ২০৬    ২৩ * ৩ = ৬৯                  ৫০৫

২০০৯     ৩২৬      ২১১ * ১ = ২১১     ৯২ * ২ = ১৮৪      ২৩ * ৩ = ৬৯                  ৪৬৪

২০০৮     ২৩৬      ১৩৩ * ১ = ১৩৩   ৮০ * ২ = ১৬০     ২৩ * ৩ = ৬৯                  ৩৬২

২০০৭      ২৫৫       ১২৭ * ১ = ১২৭     ১০৮ * ২ = ২১৬    ১৯ * ৩ = ৫৭                   ৪০০

২০০৬     ৩১৭       ১৭৮ * ১ = ১৭৮    ১১৮ * ২ = ২৩৬   ২১ * ৩ = ৬৩                   ৪৭৭

২০০৫     ৩১৮      ১৮৯ * ১ = ১৮৯   ১১২ * ২ = ২২৪     ১৭ * ৩ = ৫১                    ৪৬৪

২০০৪      ৩১২       ১৭৯ * ১ = ১৭৯     ১১৮ * ২ = ২৩৬   ১৪ * ৩ = ৪২                    ৪৫৭

২০০৩     ২৬৭       ১৪৭ * ১ = ১৪৭     ১০৪ * ২ = ২০৮    ১৫ * ৩ = ৪৫                   ৪০০

২০০২      ২৪০       ১৪৩ * ১ = ১৪৩    ৮৩ * ২ = ১৬৬    ১৫ * ৩ = ৪৫                   ৩৫৭

সংবাদ সম্মেলন

অমর একুশে উদ্যাপন ও অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪ বিষয়ে আগামী ১৮ই মাঘ ১৪২০/৩১শে জানুয়ারি ২০১৪ শুক্রবার বেলা ১১:০০টায় বাংলা একাডেমির আবদুল করিম সাহিত্যবিশারদ মিলনায়তনে এক সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়েছে। সম্মেলনে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান গ্রন্থমেলার বিভিন্ন বিষয় নিয়ে সাংবাদিকদের সঙ্গে মতবিনিময় করবেন। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত থাকবেন একাডেমির সচিব মোঃ আলতাফ হোসেন এবং অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪-র সদস্য-সচিব ও একাডেমির পরিচালক শাহিদা খাতুন।

বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০১৩ ঘোষণা

আজ ১৭ই মাঘ ১৪২০/৩০শে জানুয়ারি ২০১৪ বৃহস্পতিবার বিকেল ৩:০০টায় বাংলা একাডেমির ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহ্ ভবনের চতুর্থ তলার সভাকে একাডেমির সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান উক্ত সংবাদ সম্মেলনে বাংলা একাডেমি সাহিত্য পুরস্কার ২০১৩ ঘোষণা করেন। সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন একাডেমির সচিব মোঃ আলতাফ হোসেন, ভাষা ও সাহিত্য বিভাগের পরিচালক মোহাম্মদ আবদুল হাই, প্রাতিষ্ঠানিক বিভাগের পরিচালক পরিচালক শাহিদা খাতুন এবং সমন্বয় ও জনসংযোগ উপবিভাগের উপপরিচালক মুর্শিদুদ্দিন আহম্মদ।

পুরস্কার প্রাপ্তরা হলেন-

১.          কবিতা – হেলাল হাফিজ

২.          কথাসাহিত্য  –       পূরবী বসু

৩.         প্রবন্ধ –   মফিদুল হক

৪.          গবেষণা –             জামিল চৌধুরী ও প্রভাংশু ত্রিপুরা

৫.         অনুবাদ –             কায়সার হক

৬.         মুক্তিযুদ্ধভিত্তিক সাহিত্য –        হারুন হাবীব

৭.          স্মৃতিকথা ও ভ্রমণকাহিনি –       মাহফুজুর রহমান

৮.         বিজ্ঞান প্রযুক্তি পরিবেশ –        শহিদুল ইসলাম

৯.         শিশুসাহিত্য – কাইজার চৌধুরী ও আসলাম সানী

১০.        নাটক –   এ বছর কেউ পান নি

আগামী ১লা ফেব্র“য়ারি বাংলা একাডেমি আয়োজিত অমর একুশে গ্রন্থমেলা ২০১৪-র উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আনুষ্ঠানিকভাবে এ পুরস্কার প্রদান করবেন ।

(মুর্শিদুদ্দিন আহম্মদ)

উপপরিচালক

 

 

 

 

Print Friendly