প্রবেশ করুন

    
প্রবেশ

Category Archives: পদাবলী

m.sumi

পরিবর্তন : মৌসুমী রায়(ঘোষ)

পরিবর্তন
-মৌসুমী রায়(ঘোষ)

সৃষ্টি থেকেই
চলছে অভিযোজন|
অভিযোজিত হতে হতে আমরা
স্বার্থপর সংস্করনে পৌঁচেছি|
(ভীষন খর্বাকার হয়ে গেছি|)

Bf

।। আয়নাগাছ ।।

ভেজা সাবানের গন্ধ। ভোর এলো নাকি?

তবে তো স্নানের বেলা তোমার ওখানে!

বৃষ্টিগন্ধা রাত্রিতলে পেন্সিলে লিখেছি পদ্য। শুকনো ত্বক/

কেটে দিচ্ছি কলমের খঞ্জর-টানে

সম্মতি দেবে কি গৃহী, স্নানঘরে?

ফেনায়িত বাথটাবে

saba-stall

রহমান হেনরীর কবিতা

করতালি ভেসে যাবে, গমগমে কণ্ঠনাদ,
শস্যগোলা ঘিরে রাখা গুণ্ডামির শিস;

তোমাকে ছাড়াই চলতো, চলেছিলো,
চলবে তো পাঁচ-দশ-পনের বা বিশ

এই ঋতু লালবর্ণ; ঝড়ে ঝড়ে, জলোচ্ছ্বাসে
দর্পিত পাহাড়েরও

images 4

যানজটে চিঠি

এখানে ঢাকায় প্রচন্ড গরম
ফসলের মাঠে চৌচির মাটি
কৃষকের ছাতি ফাটে, গাঁও-গ্রাম
দিনাজপুর থেকে পটুয়াখালী
রোড জ্যামে অস্থির জীবন।।
ওখানে তুমিও; কলকাতায়
বনগাঁও থেকে

images

কল্যান গাঙ্গুলী ও মৌসুমী রায়(ঘোষ)এর কবিতা

অ…শুভ দীপাবলী

কল্যান গাঙ্গুলী

আজকের চাঁদ, করে প্রতিবাদ, তাই বুঝি অমানিশা;
ঘনায় হৃদয়ে, ব্যথাতুর হয়ে, হারায় পথের দিশা॥
মননেতে বিষ, বাঁচার হদিস, দিতে আসে ফেরীওয়ালা;
তাই

সাভারের ধরেন্ডা গ্রামে মিশন তরুন সংঘ আয়োজিত শিমুদের কবিতা ও গলাপ পাঠ প্রতিযোগিতায় বিচারকবৃন্ধ বামে কবি আশরাফুজ্জামান, আবৃত্তিশিল্পী সুলতানা নাজ, সাহিত্যবাজার সম্পাদক আরিফ আহমেদ ও আয়োজকদের একজন গল্পকার সায়েম বিশ্বাষ

কয়েকজন কবির কবিতা

ও কি গাড়িয়াল ভাই
তোমার পন্থের দিকে চেয়ে চেয়ে
ফিরে এলাম চিলমারীর বন্দর হয়ে;
নাই, কোথাও আব্বাসীয়া
ভাওয়াইয়া নাই।

অগত্যা বাবার তরুণ বয়সের গ্রামোফোনটাই সম্বল।

অবতার : মৌসুমী রায়(ঘোষ)

অবতার
-মৌসুমী রায়(ঘোষ)

তুমি ছিলে, তুমি আছো আমাদের সাথে|
কোন সে সত্য-ত্রেতা-দ্বাপর যুগ থেকে, যুগান্তরে|
তুমি নিষ্ঠুরতা করেছো দমন, ভেঙেছো দর্প দাম্ভিকের,
অসহায়দের দিয়েছো স্নেহালিঙ্গন, রক্ষা

সময়ের রথে : পদ্মনাভ অধিকারী

সময়ের রথে
পদ্মনাভ অধিকারী

প্রতিদিন-প্রতিনিয়ত প্রতিবিম্ব দেখি
তোমার  বিপরীতে-স্বচ্ছ আয়নায়। আর
এভাবেই কেটে যায় নির্ঘুম  কত রাত…।

তোমার বিপরীতে কাকে দেখ নগর বালক,
সময়ের চলমান অ-স্বচ্ছ

নর্দমার জীবন প্রণালী : ওবায়েদ আকাশ

নর্দমার জীবন প্রণালী
ওবায়েদ আকাশ

পেটিকোট পরে দাঁড়িয়ে থাকা নর্দমায়
বসে আছে আলোকোজ্জল মৌমাছি
ভ্রমরের জীবন পেয়ে সুদীর্ঘ প্রতীক্ষা শেষে
তাকে দেখা গেল এই অবগাহিত আনন্দের

শূন্য দশক ও প্রেম : আনজীর লিটন

শূন্য দশক ও প্রেম
আনজীর লিটন

দুইজন মেয়ে একজন ছেলে রিকশায় চড়ে যাচ্ছিলো
পাশাপাশি বসে হাসাহাসি করে পপকর্ণ ওরা খাচ্ছিলো
ছেলেটা বসেছে সিটের