প্রবেশ করুন

    
প্রবেশ

Category Archives: পদাবলী

রূপান্তর : মৌসুমী রায়(ঘোষ)

রূপান্তর
-মৌসুমী রায়(ঘোষ)

শীতের বুড়ির শনের নুড়ি চুল,
কুঞ্চিত ত্বকের নীচে
চির যৌবনা বসন্ত|
শুঁয়োপোকা যেমন প্রজাপতি|

(০৬/১২/১৩)

পরিব্রাজকের প্রতীক্ষা : অরুণিমা নাসরীন

পরিব্রাজকের প্রতীক্ষা

অরুণিমা নাসরীন

রুখুসুখু কেশের শীর্ণসিঁথি পল্লবিত হয় তরল সুগন্ধি তেলে
উনুনের কামনার পীচবর্ণ জিহবা
তুষ্ট হয় শুকনো কড়িকাঠে
আ! আর্তবতী লবণকণ্যার নদীর স্ফটিকের ঘাঘরা

মুক্তিযুদ্ধের পুঁথি : ফয়জুল আলম পাপ্পু

মুক্তিযুদ্ধের  পুঁথি
ফয়জুল আলম পাপ্পু
শুরু মুক্তিযুদ্ধ ॥ ভয়াবহ  ন’ মাসের সংগ্রাম
নিয়াজি আর ইয়াহিয়ার ঝরলো কতোই ঘাম
তারা শত্র“ ভীষণ॥ আর বিভীষণ রাজাকারের দল

গগনবাড়ির মেয়ে : মাহমুদুল হাসান ফেরদৌস

মাহমুদুল হাসান ফেরদৌস এর কবিতা

 গগনবাড়ির মেয়ে
——–
সন্ধ্যাতারার সাথে বাক্যালাপ-কালে আমি মুহিত হয়ে যায়,
উঁকি দিতে থাকা চাঁদকে তখন বলি, গগনবাড়ির মেয়ে
এতক্ষণে তোমার আসার

কেউ কি জানে ? : আবদার রশীদ

কেউ কি জানে ?

আবদার রশীদ

কেউ কি জানে কখন বসে
তেঁতুল পাতায় ন’জন ?
পটল পেলে সবাই তো খায়,
তুলতে জানে ক’জন ?

গুড়ের, পাটের, সব দালালের

ফারিয়া তাবাসসুম এর ছড়া : ছন্দময়

ফারিয়া তাবাসসুম  এর ছড়া

সোনা সোনা ফসল মাঠা
খুব যে মধুর গন্ধ বয়,
ঝুন ঝুনা ঝুন ধানের সুরে
এ প্রাণ যেন ছন্দময় ।।

জেগে আছি : জাহিদ রায়হান

জেগে আছি

জাহিদ রায়হান

নিশি রাতে জেগে আছি
একাকী হায়,
বৃষ্টিরা রিম ঝিম
নূপুর বাজায়।

উড়ে যায় মেঘ মালা
শব্দ করে,
বসে রোই কেমনে

হাসানআল আব্দুল্লাহ-এর কবিতা : তৃতীয় সর্গ থেকে

পর্ব ১ক.

প্রাচীন বৃক্ষের কাছে নতজানু হই। দু’হাত বাড়িয়ে নেয় নিজের বিবরে।

চারিদিকে খেদ, ক্লেদ, যন্ত্রণারা কখনো শিশুর মতো, কখনো বা রুক্ষ,

 

মেজাজী শৃগাল—খেলা করে, ফুঁসে ওঠে—দুরন্ত দুপুরে ছোড়ে

প্রতিদিন : জাহিদ রায়হান

প্রতিদিন প্রভাতে
সুর্যের আলো
আধাঁরকে ঘুচিয়ে
আরো জ্বল-জ্বলো।

রোদেলা দুপুর হয়
তারপর বিকেল
সন্ধার পরে হয়
তারাদের খেল।

নির্মলেন্দু গুণ এর কবিতা : রাজদণ্ড

নির্মলেন্দু গুণ এর কবিতা রাজদণ্ডযদি নির্বাচন হয় আমিও দাঁড়াবো, ইনশাআল্লাহ।
ভগবান গৌতম বুদ্ধের নাম নিয়ে আমিও নেমেছি মাঠে।
যদি সরাসরি ভোটে হয়, হবে। আমি সরাসরি হবো।
যদি