সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর-কে নিয়ে সংস্কৃতিকর্মীদের মিলনমেলা

নিজস্ব প্রতিবেদক, সাহিত্য বাজার

22বহুদিন পর ‘জাগো বাহে কুণ্ঠে সবার’ হাক ছাড়লেন অভিনেতা এমপি ও অবশেষে সংস্কৃতিকর্মী আসাদুজ্জামান নূর। প্রীতি সম্মিলনী পরিষদ এর আয়োজনে ও সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সহযোগিতায় গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতিমন্ত্রী, সংস্কৃতিকর্মীদের আপনজন জনাব আসাদুজ্জামান নূরকে নিয়ে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর জাতীয় নাট্যশালা মিলনায়তনে সংস্কৃতিকর্মীদের একটি প্রীতি সম্মিলনীর আয়োজন করা হয়। এতে শুভেচ্ছা বা প্রীতি বক্তব্য দিতে এসে সাংস্কৃতিকমন্ত্রী তার অভিনীত নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়ের জনপ্রিয় নাটক নুরুলদিনের সারাজীবন থেকে এ অংশ আবৃত্তি করেন। এ সময় নাট্যকার ও কবি সৈয়দ শামসুল হক তার পাশেই ছিলেন।

প্রীতি সম্মিলনী বাস্তবায়নের জন্য বিশ্ব আইটি আই সভাপতি রামেন্দু মজুমদারকে আহ্বায়ক এবং বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানের চেয়ারম্যান লিয়াকত আলী লাকীকে সদস্য সচিব করে একটি কমিটি করা হয়। প্রীতি সম্মিলনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত  উপস্থিত ছিলেন বিশ্ব আইটি আই সভাপতি ও আয়োজক কমিটির আহ্বায়ক রামেন্দু মজুমদার, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি নাসির উদ্দিন ইউসুফ, সহসভাপতি গোলাম কুদ্দুছ, সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব ড. রণজিৎ কুমার বিশ্বাস, এনডিসি, অতিরিক্ত সচিব সফিকুল ইসলাম ও পরাগ, বাংলাদেশ গ্রুপ থিয়েটার ফেডারেশানের চেয়ারম্যান ও  আয়োজক কমিটির সদস্য সচিব লিয়াকত আলী লাকী, সব্যসাচি লেখক সৈয়দ শামসুল হক, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক হাসান আরিফ, নাট্যনিদের্শক মামুনুর রশীদ, বাংলাদেশ আবৃত্তি সমন্বয় পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জনাব আহকামউল্লাহ, আইটিআই বাংলাদেশ কেন্দ্রের সভাপতি নাট্যজন আতাউর রহমান, বাংলাদেশ গ্র“প থিয়েটার ফেডারেশানের সেক্রেটারী জেনারেল ঝুনা চৌধুরী, পথনাটক পরিষদের সভাপতি ও সেক্রেটারী, নৃত্যব্যত্তিত্ব লুবনা মরিয়ম, বাংলাদেশ গ্র“প থিয়েটার ফেডারেশানের জয়েন্ট সেক্রেটারী জনাব আক্তারুজ্জামন, আহমেদ গিয়াস-সহ সংস্কৃতি অঙ্গণের অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। সামন্য আলোচনা শেষে সংস্কৃতিকর্মীদের আপনজন জনাব আসাদুজ্জামান নূরকে ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানায় নাগরিক নাট্য সম্প্রদায়, নাগরিক নাট্যাঙ্গণ, থিয়েটার, লোকনাট্যদল, পদাতিক নাট্য সম্প্রদায়, স্বপ্নদল, আরণ্যক, ঢাকা থিয়েটার, ঋষিজ, দেশ নাটক, সময়, স্বরশ্রুতি, স্বরচিত্র, কন্ঠশীলন-সহ নাটক, আবৃত্তি ও সঙ্গীতের বিভিন্ন সংগঠন। ফুলের শুভেচ্ছা শেষে বাংলাদেশ শিল্পকরা একাডেমীর চারুপ্রাঙ্গণে আয়োজন করা হয় চা-চক্রের।

বাংলাদেশে চলচ্চিত্র সংসদ আন্দোলনের ৫০বছর
বাংলাদেশে চলচ্চিত্র সংসদ আন্দোলনের ৫০বছর পূর্তি উপল্েয আয়োজিত বছরব্যাপী কর্মসূচির অংশ হিসেবে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী ও সুবর্ণ জয়ন্তী উদ্যাপন পরিষদ এর যৌথ উদ্যোগে ১২ থেকে ২০ ফেব্র“য়ারি ২০১৪ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর জাতীয় চিত্রশালা মিলনায়তনে সুবর্ণ জয়ন্তী চলচ্চিত্র উৎসবের আয়োজন করেছে।
চলচ্চিত্র উৎসবে বাংলাদেশের চলচ্চিত্র সংসদ কর্মীদের নির্মিত চলচ্চিত্র এবং চলচ্চিত্র সংসদকে প্রভাবিত করা বিশ্বের বাছাই করা চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হবে।

Print Friendly