বিশ্বাসের আগুন : নির্মলেন্দু গুণ

সাহিত্য বাজার

বিশ্বাসের আগুন

অন্ধকারে ভয় করি না, যারা নক্ষত্রের
শাড়িতে আগুন জ্বেলে ঘরে ফিরছে,
তারাই দেখাবে পথ।
পাথরে পাথর ঘষে যদি আগুন না জ্বলে,
আমরা আঁধারে আঁধার ঘষে
ব্যতিক্রম আগুন জ্বালাবো।

একটি পাথর তুলে
আঁধারের আরেকটি পাথরে
ছুঁড়ে মারবো প্রেম।
ভালোবাসা আলো জ্বালবে,
জ্বিরের জ্বালার মতো জ্বলজ্বলে
আকাশে আগুন।
অন্ধকারে ভয় করি না,
আমরা আঁধারের গাল ছুঁয়ে
নেমে আসবো দল বেঁধে।

সংরক্ত বিশ্বাস এসে ডেকে নেবে
হারানো স্বপ্নের কাছাকাছি।
মাটির প্রদীপ জ্বেলে, মা আমার,
আমি আসিয়াছি অন্ধকারে,
মধ্যরাতে নক্ষত্রের লাল-পাড়ে
বিশ্বাসের আগুন জ্বালিয়ে।

তোমার হাতের শাঁখা জ্বলে উঠবে
স্নেহে, তোমার ছেলে ঘরে ফিরবে,
জায়নামাজের মধ্যে তার স্পষ্ট
পদচিহ্ন, মোমের শিখার টানে
অন্তর্গত সুতোর মতন তোমার প্রার্থনা
উদ্ভাসিত হবে ক্রমে ক্রমে।

তোমার হাতের তসবিহর মতো
মৃত লক্ষ-ছেলের মাথায় খুলি
আজ কী সুন্দর আলো দিচ্ছে দেখো।

মাগো, অন্ধকারের ভয় করো না,
আমরা ফুসফুসে আগুন জ্বেলে
তোমার জন্য ঘরে ফিরছি।
পাথরে পাথর ঘষে,
পাথরে হৃদয় ঘষে
হৃদয়ে হৃদয়।

Print Friendly