বান্ধ কারো বাকোয়াজ

গৌতমমূসা মোহাম্মদ কৃষ্ণঈসা

তখন ছিল রাত দুটা
ঘুমিয়ে পড়েছে সবাই
শুধু দীপালির চোখে ঘুম নেই।

বিছানা থেকে জানালা দিয়ে
আকাশের দিকে তাকিয়ে
দ্যাখে অপূর্ব বিশালাকায়
পূর্ণিমা চাঁদ জেগে রয়
সাদা মেঘরা চাঁদের পাশ দিয়ে
উড়ে উড়ে চলে যায়
মাঝে মাঝে মেঘেরা
চাঁদের আলো ঢেকে দ্যায়।

কিসের শব্দ?
একটি জীপ
খটমট খটমট
বুটের আওয়াজ
দরজায় লাথি
রাইফেল তাক
চেঁচিয়ে উঠে
“বান্ধ কারো বাকোয়াজ”।

দুম! দুম!! দুম!!!
বাবা-মা-ভাই গুম
ভয়ে জড়সড় দীপা
ওদিকে গোঁফে যায় জিহ্বা
টেনে তুলে নেয় জীপে
ব্যারাকে যেয়ে সব যাবে নিভে।

গাড়ী চলে গেল
পূর্ণিমা চাঁদ এখনও জেগে রয়
সাদা মেঘেরা এখনও
চাঁদের পাশ দিয়ে উড়ে উড়ে যায়
মাঝে মাঝে মেঘেরা
চাঁদের আলো ঢেকে দ্যায়।

Print Friendly

About the author

জন্মঃ ১১ই জুন, রাজশাহী। আমিঃ সাধারণ হতে চেষ্টা করি। ভালবাসিঃ মানুষ। শখঃ ব্লগিং ও বই পড়া। অবাক করেঃ পৃথিবী। মনের গহীনে জমে থাকা কিছু প্রশ্ন আমাকে স্থির থাকতে দেয় না। তাই সামান্য কিছু লেখালিখির মাধ্যমে তা প্রকাশ করার চেষ্টা করি মাত্র। আমার এই নাম করণের পেছনে কাউকে হেয় করার প্রবণতা নেই বরং সকল ধর্ম গুরুর প্রতি বিশেষ শ্রদ্ধা নিবেদন করা হয়েছে। "আমি বার বার ফিরে আসি পৃথিবীতে পৃথিবী কবে শান্ত হবে তা দেখতে। কবে কে যেন আঘাত করেছিল তাকে সে আঘাত সইতে না পেরে আজও আর্তনাদ করে করে ছুটে চলেছে পৃথিবী একই বাঁকে বাঁকে একই ঘূর্ণি পথে একই কক্ষপথে। কষ্ট নিয়ে নিয়ে ছুটে চলা পৃথিবীর সেই আর্তনাদ শুনতে কি চাও তুমি তবে তৈরি থেকো কোনও এক চাঁদ বিহীন মধ্যরাতে কান পেতে রেখো হৃদয়ের স্তব্ধ মণিকোঠাতে।"