তামান্না কদর এর কবিতা

সাহিত্য বাজার

কবি সামশুল ফয়েজ এর জন্মদিন পালন করছেন ময়মনসিংহের কবিরা

উদ্দেশ্যপ্রণোদিত

যে চলে যাবার জন্যে মনস্থির করেছে। অথবা
যে ‘চলেই যাব’ এই ভেবে কাছে এসেছিলো,
সে যখন আজ চলে যেতে চাচ্ছে, কী ভেবে ফেরাতে চাও তারে!
তুমি হয়তো ভেবে নিয়েছো- একসময় তো বাসতো, অথবা
তার কোন অতীত বার্তায়, আবেগে আপ্লুত তুমি
গভীর আবেগে ভাবছো- একসময় আমাকে ছাড়া যার চলতো না,
আমাকে ছাড়া যে বাঁচতো না, কী করে আজ সে————??
কী করে!!
এই ই সত্য- সে আজ চলে যেতে মনস্থির করেছে।
আর যা কিছু ছিল অতীতে, কিছুদিন আগেও
এ সবকিছুই ছিলো উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।
জানো না, মুক্তোর দানাকেও বানর বৈচিফল ভেবে——-
জানো না, একবার পাবার পর জল মনে হয় যাবতীয় পানীয়।
এই ই সত্য- সবকিছুই উদ্দেশ্যপ্রণোদিত।
এই-সেই অজুহাত, এ সকল নিতান্তই অজুহাত।
উদ্দেশ্য এখন, আপাতত এই ষ্টেশনটি ছেড়ে যাওয়া,
জানো তো, তোমারই মতোন অন্য কোন বোকা
বসেে আছে শুভাগমণের আশায়।
সেখানে ষ্টেশন ধরবে অর্বাচীন বালক আবার।
আবারো ষ্টেশন ছেড়ে যাওয়াই হবে যার উদ্দেশ্য।
তার একমাত্র লক্ষ্য-’উদ্দেশ্যপ্রণোদিত’।

তোমার কষ্ট আমার কষ্ট

তোমার কষ্ট, আমার বুকে হাতুরি পেটার মতো।
আমার কষ্ট, তোমার উল্লাস, নৃত্য প্রচন্ড।
যতোবার ফিরায়ে দিয়াছো
ফিরে ফিরে গেছি তোমায়।
যদিও জানি তোমার আগ্রহ অশেষ
ফণা-প্রতারণায়।
আমার গোলাপ বাগান
দুপায়ে মাড়িয়ে, দ্বিধাহীন তুমি।
আর আমার জগৎখানি শুষ্ক মরূভূমি।

শ্বাশত

প্রতিদিন মানুষের মুখ দেখবো বলে-
পা বাড়া্ঈ, হাত বাড়াঈ
হাতের নাগালে জোটে শেয়াল-শকুনের মুখ।
কোট-টাঈ পড়া আর আপাদমস্তক ঢাকা
এঈসব মানুষদের আড়ালে আসলে
জ্বলজ্বল করে শয়তানের চোখ।
তুমি বন্ধু বন্ধুঈ থেকো আমার
তুমি বন্ধু যেখানেঈ থাকো
খুঁজে নেব অসীম সুখ।
তুমি বন্ধু সাগর দেখিয়ো, আকাশ দেখিয়ো
পাহাড় দেখিয়ো, বিশ্ব দেখিয়ো
শুধু দেখিয়ো না গৃহকোণ।
আমি ঘর দেখেছি, প্রেমও
ঘর পুড়ে যায়, প্রেম যায় অপ্রেমে
থেকে যায় সেখানে সুখের অসুখ।
তুমি বন্ধু প্রেমহীন অশরীরি স্পর্শ দিও
দু:খ ছুঁয়ো, জানা-অজানা ঘটনাক্রমও
আরো ছুঁয়ে দেখো মেধা ও মনন ।
আমি জানি তুমি সেঈ তেমনঈ হবে।
আর আমি ক্রমাগতঈ যাবো অতলে
যদিও জানি সেখানেও পোড়াবো দেহমন।
যদিও জানি নর্দমার জলে স্নান অশুদ্ধ
যদিও জানি ছাঈয়ের ভেতরে ছাঈ-ঈ থাকে শুধু
তবু নর্দমা আর ছা্ঈতেঈ যাবো, হিসেব অগনন।
প্রতারণা আর ভালোবাসা পাশাপাশি হাঁটেে
আমি এর নাড়ীনক্ষত্র সব জানি।
তবু শেষটা না দেখে শান্তি নেঈ যেনো।
ধেড়ে যে ঈদুর, চেনাপথ অচেনা হলে পরে
কিছুদিন নিরব।
অত:পর আবার সেঈ পথঈ চেনা করে নেয়, জানো?
সেঈরকম আমিও পথ চিনি, পথ ভুল করি।
সে পথেঈ হাঁটি, সে পথেঈ যাঈ,
আমি সেঈ ধেড়ে ঈদুরের মতোন।
তুমি বন্ধু বন্ধু্ঈ থেকো
ঘর নয়, প্রেম নয়, শরীর নয়
মন দিয়ে শুধু মনঈ চেনো।

Print Friendly